বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:২০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
চুনারুঘাট প্রবাসী গ্রুপের সেক্রেটারি নুরুল কালাম আযাদ দরবেশ’র নামে ফান্ডের টাকা আত্মসাদের অভিযোগ নড়াইলে গৃহবধু আত্মহত্যার ২৪ দিন পর প্ররোচনার অভিযোগে থানায় মামলা শশুর গ্রেফতার ত্রিশালে বৈধ মুক্তিযোদ্ধা ১১৩ জন,অবৈধ ৪১ জন নড়াইলে দু’মাদক কারবারীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও জরিমানা অষ্টমীরচর ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু তালেব ফকিরের নির্বাচনী গণসংযোগ চুনারুঘাটে ‘আমার বাড়ি আমার খামার’ প্রশিক্ষণ সম্পন্ন লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়ার নার্সের হাতের সিনিয়র নার্স আহত জামাল হোসেন খোকনের ভোট চাইলেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ নির্মিত হলো ভালোবাসা দিবসে উপলক্ষে নাটক “প্রত্ননারী” হবিগঞ্জের চুনারুঘাট-সাটিয়াজুরী রাস্তার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন:

পাবনায় বকুল হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি: শনিবার (১২ ডিসেম্বর) সকালে হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন তারা। কয়েক হাজার নারী পুরুষের এ বিক্ষোভ মিছিল শেষে শহরের আব্দুল হামিদ সড়কের এক পথসভায় বক্তারা হত্যাকারীদের গ্রেফতারে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে হুশিয়ারি দেন তারা। এদিকে মৃতদেহ দাফন শেষে অনন্ত মোড় এলাকায় একাধিক দোকানপাট ভাঙচুর ও গোডাউনে অগ্নিসংযোগ করেছে বিক্ষুব্ধ জনতা। এ সময় বিক্ষুব্ধদের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় তিন পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। নিহত বকুলের বন্ধু ও ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আলতাফ হোসেন ও শহিদুর রহমান জানান, চাঁদা তোলা বন্ধ করে দেয়ায় একদল সন্ত্রাসী শুক্রবার সন্ধ্যায় কৌশলে বকুলকে অনন্ত মোড় এলাকায় ডেকে এনে কুপিয়ে হত্যা করে চলে যায়। এ বিষয়ে দোগাছী ইউপি চেয়ারম্যান আলী হাসান বলেন, বকুল শেখ আমাদের ইউনিয়নের জনপ্রিয় সদস্য। তাকে সন্ত্রাসীরা যেভাবে প্রকাশ্যে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে, তা কিছুতেই মেনে নেয়া যায় না। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সন্ত্রাসীরা গ্রেফতার না হলে আমরা তীব্র আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবো। পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আব্দুল আহাদ বাবু বলেন, এলাকাবাসীর স্বার্থে অন্যায়ের প্রতিবাদ করায় বকুল শেখকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকেই এ হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করি। চিহ্নিত হত্যাকারীদের পুলিশ গ্রেফতার করতে পারছে না। ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে গেলে যে কোনো পরিস্থিতির দায় প্রশাসনকেই নিতে হবে। এদিকে, বকুল শেখ হত্যার ঘটনায় এলাকায় তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে। বিক্ষুব্ধরা শনিবার দুপুরে অনন্ত বাজার এলাকায় বেশ কয়েকটি দোকান পাটও ভাংচুর করে। হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের প্রশ্রয় দেয়ার অভিযোগ রয়েছে এ অভিযোগ অস্বীকার করে পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতেই এ ধরণের অভিযোগ করা হচ্ছে। পুলিশ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতারে তৎপর রয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তিনি অপ্রীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি না করে তদন্তে সহযোগিতার জন্য বকুলের সমর্থকদের প্রতি আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, বিকেলে সাড়ে তিনটার দিকে মৃতদেহ দাফন করে ফেরার পথে নিহত ইউপি সদস্য বকুল শেখের স্বজন ও এলাকাবাসী বেশ কয়েকটি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে এবং ভাংচুর চালায়। তাৎক্ষণিক পাবনা ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিয়ে তা নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এ সময় আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে বিক্ষুব্ধরা আমাদের উপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ করলে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরে ব্যারেল গ্যাস ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এ বিষয়ে পাবনা ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক দুলাল মিয়া জানান, তাৎক্ষণিক খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় ৯টি বাড়ির আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তিনি তাৎক্ষণিক জানাতে পারেন নাই।

নিউজটি শেয়ার করুন


      এ জাতীয় আরো খবর..