সোমবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৫:০৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
চুনারুঘাট প্রবাসী গ্রুপের সেক্রেটারি নুরুল কালাম আযাদ দরবেশ’র নামে ফান্ডের টাকা আত্মসাদের অভিযোগ নড়াইলে গৃহবধু আত্মহত্যার ২৪ দিন পর প্ররোচনার অভিযোগে থানায় মামলা শশুর গ্রেফতার ত্রিশালে বৈধ মুক্তিযোদ্ধা ১১৩ জন,অবৈধ ৪১ জন নড়াইলে দু’মাদক কারবারীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও জরিমানা অষ্টমীরচর ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু তালেব ফকিরের নির্বাচনী গণসংযোগ চুনারুঘাটে ‘আমার বাড়ি আমার খামার’ প্রশিক্ষণ সম্পন্ন লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়ার নার্সের হাতের সিনিয়র নার্স আহত জামাল হোসেন খোকনের ভোট চাইলেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ নির্মিত হলো ভালোবাসা দিবসে উপলক্ষে নাটক “প্রত্ননারী” হবিগঞ্জের চুনারুঘাট-সাটিয়াজুরী রাস্তার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন:

নিয়ামতপুরে সাপের কামড়ে মৃত ব্যক্তির খবরে ডাক্তারের অবহেলা অসত্য,ইউএনও’র নিন্দা প্রকাশ

শাহাদাত হোসাইন, নিয়ামতপুর প্রতিনিধিঃ ডাক্তার একটি মহান পেশা। বেশির ভাগ ডাক্তারগন নিবেদিতপ্রাণ তবে ভালোর মধ্যে কিছু খারাপ ব্যক্তিত্ব থাকবে এটাই স্বাভাবিক। বলা বাহুল্য বর্তমানযুগে ডাক্তারদের দোষারোপ করা অনেকটা ফ্যাশন হয়ে দাঁড়িয়েছে। আসুন,সচেতনতা অবলম্বন করি। ভালো কে ভালো আর মন্দকে মন্দ বলতে শিখি।আপনার মতামতে অন্তত সৎ ও দ্বায়িত্বশীল মানুষগুলো কাজে একটু হলেও কর্মস্পৃহা পাবে। গতকাল বেশ কয়েকটি পত্রিকায় নিয়ামতপুরে সাপের কামড়ে মৃত ব্যক্তিতে ডাক্তারের অবহেলার কথা প্রকাশিত হয়েছে।এমন অসত্য খবর প্রকাশে নিন্দা জানিয়েছেন নিয়ামতপুর ইউএনও জয়া মারীয়া পেরেরা। জেনে নিন আসল ঘটনা। করোনাকালীন অন্য প্রসঙ্গ,সাপের কামড়ে ওঝা নয়। ভোর ৫ টা। ইমারজেন্সীতে এক মধ্যবয়স্কা মহিলা কে নিয়ে আসা হয়েছে, ঘুমের মাঝে কোন এক পোকায় কামড় দিয়েছে, রাত ১:৩০ টায়। স্থানীয় পল্লি চিকিৎসক Inj. Trialone দিয়েছে চিকিৎসা হিসেবে। কিন্তু রোগির অস্থির লাগছে, শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্চে দেখে হাস্পাতালে এসেছেন। দেখে তড়িৎ সিদ্ধান্ত নিলাম রিস্ক নিয়ে হলেও Antivenom দেওয়া উচিত। প্রিপারেশন হিসেবে সহকারী মোঃ শাহ আলম সাহেব কে ভায়াল প্রস্তুত করতে বলে নিজেও হাত লাগালাম। প্রয়োজনীয় অত্যাবশ্যক হিসেবে inj. Avil & inj. Adrenalin সাপ্লাই না থাকায় বাইরে থেকে আনতে বললাম। রোগিণীর কষ্ট আর তার মেয়ের কান্নায় নিজেই বারবার তাড়া দিচ্ছিলাম। এত ভোরে তারা কোন দোকানেই ওষধ পেল না। অগত্যা, পরিচিত প্রিয় মুখ তারেক ভাই দেখলাম বাইক নিয়ে ৮ কিমি দুরের আরেক বাজারে গেল। ইতোমধ্যে রোগিণীর অনেক স্বজন জুটে গেছে এবং তার ছেলেকে বকাঝকা শুরু করল কেন এতক্ষন ওঝার কাছে নেওয়া হয়নি। আমি হতভম্ব হয়ে দেখলাম আমাদের সকলের কথা অগ্রাহ্য করে রোগীকে তারা আসলেই নিয়ে যাবে। ছেলে কে আলাদা করে নিয়ে বুঝালাম, ৭:৩০ বাজে এখন একটু পরই সব দোকান খোলা পাবেন এখানে ইঞ্জেকশন দুইটা পেলেই আমরা এন্টিভেনম দিতে পারব। কাজ হল না বলে বকাও দিলাম। অদ্ভুত ব্যাপার সে খুবই বিনীত অথচ দৃঢ়ভাবে বদ্ধপরিকর। স্বাস্থ্যসেবা এক প্রকার সেবা এখানে আপ্নাকে জোর করে দেওয়ার কিছু নাই। খুবই কষ্ট নিয়ে রোগির বৃত্তান্ত লিপিবদ্ধ করে তাকে রাজশাহী তে রেফার করলাম সাথে এও বললাম তারা সেবা প্রত্যাখান করে রোগিকে নিতে চান। অত:পর এম্বুলেন্স করে অক্সিজেনসহ রোগিকে পাঠিয়ে দিলাম। খারাপ সংবাদের জন্যই আশংকা করছিলাম। বেলা ১১ টায় রোগি আবার আসল হাসপাতালে। ওঝা বলেছে বিষ পড়ে গেছে, তাই উনারা শুধু অক্সিজেন দিতে এনেছেন। আমি দেখলাম রোগি কিছুক্ষন আগে মারা গেছেন। এরপর সাংবাদিক গন আসলেন, অনেকেই ফোন দিচ্ছেন, কি ঘটেছে জানার জন্য। আর আমার কানে শুধু অসহায় মেয়েটার মায়ের জন্য আর্তনাদ কানে বাজে, ” আল্লাহ মাফ কর।” বসে বসে ভাবছি কে বড় শত্র-ু সাপ, মেডিসিনের দুষ্প্রাপ্যতা নাকি অজ্ঞানতা।

নিউজটি শেয়ার করুন


      এ জাতীয় আরো খবর..