সোমবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১১:৩০ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
চুনারুঘাট প্রবাসী গ্রুপের সেক্রেটারি নুরুল কালাম আযাদ দরবেশ’র নামে ফান্ডের টাকা আত্মসাদের অভিযোগ নড়াইলে গৃহবধু আত্মহত্যার ২৪ দিন পর প্ররোচনার অভিযোগে থানায় মামলা শশুর গ্রেফতার ত্রিশালে বৈধ মুক্তিযোদ্ধা ১১৩ জন,অবৈধ ৪১ জন নড়াইলে দু’মাদক কারবারীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও জরিমানা অষ্টমীরচর ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু তালেব ফকিরের নির্বাচনী গণসংযোগ চুনারুঘাটে ‘আমার বাড়ি আমার খামার’ প্রশিক্ষণ সম্পন্ন লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়ার নার্সের হাতের সিনিয়র নার্স আহত জামাল হোসেন খোকনের ভোট চাইলেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ নির্মিত হলো ভালোবাসা দিবসে উপলক্ষে নাটক “প্রত্ননারী” হবিগঞ্জের চুনারুঘাট-সাটিয়াজুরী রাস্তার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন:

কুড়িগ্রামে ভারি বর্ষণ ও উজানের ঢলে ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, তিস্তা, দুধকুমারসহ ১৬টি নদ-নদীর পানি অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে।

মশিউর রহমান বিপুল, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ সোমবার সকালে ব্রহ্মপুত্র চিলমারী পয়েন্টে ৪৫ সে.মি. নুন খাওয়া পয়েন্টে ৪৭ সে.মি.ও ধরলা নদী ব্রীজ পয়েন্টে ৮২ সে.মি. বিপদসীমার. ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। ফলে জেলার ৯টি উপজেলার ৫৬টি ইউনিয়নের প্রায় লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। ঘর বাড়িতে পানি ওঠায় অনেকেই রাস্তা ও বাঁধের উপর আশ্রয় নিতে শুরু করেছেন। ভেঙে পড়েছে গ্রামীণ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা। বন্যাকবলিত এলাকার জমির ফসল তলিয়ে গেছে। নিমজ্জিত ফসলের মধ্যে রয়েছে পাট, পটোল, বেগুন, ভুট্টা ও বীজতলা কুড়িগ্রাম রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবর চন্দ্র সরকার – জানান, কুড়িগ্রামে যে বৃষ্টিপাত হচ্ছে তা ১৫ তারিখ পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। ১৫ তারিখের পর পরিস্থিতি জানা যাবে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৪ দশমিক ৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানান ওই কর্মকর্তা। কুড়িগ্রাম সদর যাত্রাপুর ইউনিয়নের চর যাত্রাপুর গ্রামের শাহালোম ও ইসমাইল হোসেন জানান, আমাদের সবার বাড়ি ও টিউবওয়েল পানির নিচে তলিয়ে গেছে। কোনরকমে চৌকির ওপরে বসবাস করছি। রান্না করা ও বিশুদ্ধ পানির খুবই সমস্যা পড়ছি আমরা। বিশেষ করে চরম দুর্ভোগ পড়েছে,গৃহপালিত পশু-পাখি,গরু,ছাগল,হাঁস,মুরগী,যদিও এগুলো খেটে খাওয়া মানুষের প্রয়োজনীয় সম্পদ।এসব অবুঝ গৃহপালিত পশু নিয়ে অনেকেই পলিথিনের তাবু টেনে তার,মধ্যে মাথা গুজে আছে-এই অসহয় মানুষ গুলো। কুড়িগ্রাম সদরের যাত্রাপুর ইউনিয়নের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলী সরকার বলেন, আমার ইউনিয়নটি সম্পূর্ণ পানিতে তলিয়ে গেছে প্রায় চার থেকে পাঁচ হাজার পরিবার পানিবন্দি জীবন যাপন করছে। গত বন্যার কিছু বরাদ্দ ছিল তা বিতরণ করা হয়েছে, নতুন করে এখনও কোন বরাদ্দ পাইনি।

নিউজটি শেয়ার করুন


      এ জাতীয় আরো খবর..